পোস্টগুলি

শিক্ষার আলো

সকাল হলে বেড়িয়ে যায় দাদু মোষ নিয়ে সময় কাটে ভালোই দাদুর বাচ্চাদের পড়িয়ে। দাদু নাতির  দেখা হয় রোজ পথের ধারে ছুটির দিনে দাদুর কাছে পড়াশোনা করে। দাদু বলে নাতিকে বড় যদি তুমি হতে চাও  পড়াশোনা করো মন দিয়ে তবে শিক্ষিত হও। পড়াশোনার অনেক গুণ যদি লাগে কাজে জ্ঞানের আলো জ্বলবে দেখো সকলের মাঝে।

মনর সাথে মনের কথা

হটাৎ করে আসা কিছ খুশি র মুহুর্ত জীবনে সবচেয়ে আনন্দময়,  জীবনের স্রোতে হারিয়ে যায় কত চেনা মুহূর্ত  বিষন্নতায় তাকে শুধু খুঁজে ফিরি । কখন ও কিছু না চাইতেই পাওয়াকে জীবনের  অনেক বড় পাওয়া বলে মনে হয় কখনো। চাইলেই যে পাওয়া যায় সেটাতে অভ্যস্ত নয় জীবন ছিঁটেফোঁটা খুশিতেও ভালো থাকা যায়। কে কি ভাবে তাকে  নিয়ে অযথা মনের উপর চাপ দেওয়া সেটা নিয়ে ভাবতে বসলে অপ্রয়োজনীয় আবর্জনা  ছাড়া ভালো কিছু পাওয়া যায়না।  অনেক ভালো হয়েও জীবনে দেখবে লাভ খুব একটা হয় বললে ভুল হবে মন্দটাই বেশী জোটে। ভালো ব্যবহার করলেই যে সকলে প্রশংশার ডালা সাজিয়ে ধরে তা কিন্তু হয়না ,আমরা সবসময় আশা নিয়ে থাকি। আমার সবটুকু ভালো দিয়ে  লালন করি রাতদিন প্রচেষ্টা,নিজের  কাছে ভালো থাকা, জীবনটা শিখিয়ে পড়িয়ে নেয়। হিসেব নিকেশের গল্পকথা নাই বা লেখা হলো খালি থাক কিছু  মনের পাতা । ✍️উমা মজুমদার ৩১/১/২৪

যাদুর নেশা

যাদুর নেশা... কাজে নেই মন পড়াশোনা গোল্লায় কি যে  যাদু একবার হাতে পেলে চায়না কিছু স্বাদের  মধু  দুনিয়া মত্ত তার নেশায় হাতের কাছে থাকা চাই ছোট বড় সকলে ঘরে বাইরে ব্যস্ত তাকে নিয়ে শুধু।

প্রিয় নেতাজী

দেশকে স্বাধীনতার গ্লানি থেকে মুক্তি দিতে  নিজেকে করেছিলেন দান এই বঙ্গসন্তান ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের মুক্তিযোদ্ধা  নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসুকে শতকোটি নমন। পরাধীনতার শৃংখল ছিন্ন করার স্বপ্ন নিয়ে বুকে দেশকে ভালোবেসে দুঃসাহসিক তোমার সংগ্রাম কোটি কোটি ভারতবাসীর ছিলে তুমি আশা ভরসা স্বাধীনতা সংগ্রামের  বীর সন্তান নেতাজী তোমার নাম।

সমাপ্তির গল্পকথা

সমাপ্তির গল্পকথা.... একটি গল্প বা উপন্যাসের কাহিনী পড়তে পড়তে শেষ অধ্যায় টা জানার  জন্য ভীষন উৎসুক হয়ে পড়ি,,, সমাপ্তিটা কেমন হবে শেষটা কি অসন্পূর্ণ থেকে যাবে ,,নাকি সুন্দর সমাপ্তি ঘটবে কত কি ভেবে ফেলি মনের মধ্যে,,, কখনো সুখের কখনো বা দুঃখের ,,যা হয় আমরা সেটাই মেনে নিতে বাধ্য  ,,,সেখানে লেখকের ইচ্ছের উপর সন্পূর্ণ নির্ভর করে। কিন্তু আমাদের জীবনের গল্পকথার  সমাপ্তির ভারটা একদম অন্যরকম সেখানে ইশ্বর নির্ভরযোগ্য,,,, যতই আমরা হিসেব নিকেশের গল্পকথা লিখিনা কেন  আমাদের হাতে কিছুই থাকেনা,,,   আমাদের জীবনে কর্মকান্ডের সমাপ্তির  ঘোষণা একমাত্র উনিই ঠিক করবেন। ✍️উমা মজুমদার। ৫/১/২৪

চিরকুট

জীবন বয়ে চলে নিয়ম বেঁধে  বারো মাসের সুখ দুঃখে বর্ষ হলো শেষ তিমির রাত্রি ভেদ করে রবি পূর্বদিগন্তে প্রতীক্ষাতে আনন্দ খুশি যতক্ষণ শ্বাস প্রশ্বাস।

তালমিল

বর্ষার জল রাস্তায়  থৈ থৈ করে মাছ ধরতে দুজনে জলে নেমে পড়ে কি করে ধরবে জলের জ্যান্ত মাছ বুদ্ধি বেরোলো তাদের মাথায় আজ দুজনের তালমিলে গামছা জলের মাঝে ধরা পড়লো কত মাছ গামছার ভাঁজে খেলার ছলে ভাই বোনের ইচ্ছে পূরণ ছোট ছোট আনন্দ খুশীতে ভরায় মন। ✍️উমা মজুমদার ০১/০১/২০২৪