পোস্টগুলি

আশার আলো

জন্মটা অভাবে, শৈশব হারিয়ে যায় পথে পথে ঘুরে কেটে যায় সারাদিন চাওয়া পাওয়া থাকে না মনে   দু  মুঠো  খেয়ে জীবন যাপন। সোনার চামচ মুখে নিয়ে  কেও বা জন্মে অট্টালিকায় ফুটপাতে জন্ম হয়ে,জীবন কাটে  পথের ধারে, অনাহারে অসহায়। মানুষ জীবন ধন্য,ধনী গরীব ভেদাভেদ মানুষ দোষ দেয় আপন ভাগ্যকে থাকেনা   পিছনে পরে গরীব বলে  স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যায় লেখাপড়া শিখে।  বড় মানুষ হয় একদিন  প্রাণপণ চেষ্টায় ইচ্ছায় কি না হয় দারিদ্রতা হেরে যায় শিক্ষায়।

সহজ পাঠ

সহজ পাঠের  স্মৃতি, আজও মনের দ্বারে অ'তে অজগর আ' তে আম, চেনা অক্ষরে। মায়ের কোলে আদর খেয়ে, সকাল বিকেল যুগের হাওয়ায়  সহজ পাঠ   আজ সেকাল সহজ পাঠের চলতি ভাষা, বর্ণের সাথে পরিচয় রবিঠাকুরের অনন্য সৃষ্টি,সহজ পাঠ সদা স্মৃতিতে রয়।

ভাইফোঁটা

ভাইয়ের কপালে বোনের ফোঁটা   মিষ্টি বন্ধনের উৎসব পালন, ভাইফোঁটার উৎসব ঘরে ঘরে ভালোবাসায় গড়া মিষ্টি বন্ধন। অশক্ত শরীর ,বয়সের নেই যে বাধা  তবুও,ভাইয়ের মঙ্গল কামনায় ,দিবে ফোঁটা চন্দন কাজলের মঙ্গল  তিলক, দূর হবে আপদ  বিপদ ,বোনের ফোঁটায় যমের দুয়ারে পড়ে কাঁটা।

বসন্ত এলো যে

শীতের  ঝরা পাতা  বিদায় বলে শেষে দখিন দুয়ার খুলে  বসন্ত দাঁড়ায় এসে  নতুন বেশে প্রকৃতি সাজে ফুলে ফুলে ভ্রমর খেলে  পলাশ শিমুলে রং লাগে এলো রে বসন্ত ফাগুন বলে প্রেমের নেশায়  সুর বাজে সুর তোলে কোকিলের কহুতানে  আকাশে  বাতাসে  রঙ ছড়ায়  বসন্তের  আগমনে ভালোবাসার রং নিয়ে রঙিন বসন্ত আসে যায় তবু‌ও হয় না  রঙিন ,উদাসী  মন ব্যর্থ ভালোবাসায়।

এসো মা বছর পরে

কত আনন্দ কত  আয়োজন তোমার  আগমনে একটি বছর অপেক্ষায় আসো তুমি এই ভুবনে মাগো তুমি এলে  আবার কখন   চলেও গেলে পূজোর আনন্দে মেতে ছিলাম সকল কষ্ট  ভুলে মহালয়া ,আগমনী,তোমার বরনের ডালা দু চোখ  জলে ভরে ,তোমার বিদায় বেলা। আছে দুঃখ  আছে কষ্ট  ,সকলের জীবনেতে বছর পরে এসো মাগো, সকল কষ্ট ভুলাতে। দিন গুনা হলো শুরু ,মায়ের  আসার পথ চেয়ে সকলকে সুস্থ রেখো মা, তোমার চরণ ধূলো দিয়ে। শিউলির গন্ধ ছড়িয়ে আসবে, যখন বছর পরে বরণ করে নেবো তোমায় , আলতা পায়ে সিঁদুর পড়ে।

নিয়মরেখা

পূজো উপলক্ষে একটি কবিতা আমার..... নিয়মরেখা কলমে__উমা মজুমদার ২/১০/২১.... বিচিত্র নিয়মে পৃথিবী চলে  চলেনা জীবন  সমান্তরালে বাঁচার প্রয়াস  ছন্দ মিলিয়ে অভিযোগ নেই  জীবন নিয়ে পরিচয় পায়  সমাজ থেকে পথ শিশু বলে সকলে ডাকে  শৈশব  হারায়  কাজের  মাঝে মুখে মিষ্টি হাসি শৈশব খোঁজে দিন কাটে পথে  ভাবনা  নেই অনাহারে  কাটে  এইভাবেই পথে পথে ঘুরে  পেটের জ্বালা নাওনা  বাবুরা  একটি   মালা মুখখানা  হাসি  দুহাত  পাতে  খুশী হয়ে নেয় কেও বা হাতে জানেনা তাদের দোষ কথায়  অসহায়ে  কেন  দিন  কাটায় বছরে  বছরে  মা  দূর্গা আসে  পথের  দূর্গারা আঁধারে  বসে পূজোর আনন্দে দু চোখ ভিজে আলোয় আলোয় মা দূর্গা সাজে।

ডাকবাক্স

হৃদয় দিয়ে লেখা এই পত্রখানি ডাকবাক্সে দিলাম ঠিকানা লিখে আছে যত দুঃখ কষ্ট তোমার মনে সব ভুলে হাসি ফুটুক তোমার মুখে  হাজার  মানুষের পথচলা তবুও  পথের ধারে পড়ে আছো একা সময়ের খোলসে রপ বদলায় প্রযুক্তির কল্যাণে  ভুলে থাকা।